Breaking News
Home / কাপাাসিয়া / নৌকায় ভোট দিবো, কোনো ঋণ খেলাপিকে ভোট দিবো না … সোহেল তাজ!

নৌকায় ভোট দিবো, কোনো ঋণ খেলাপিকে ভোট দিবো না … সোহেল তাজ!

মাহাবুর রহমন, গাজীপুর! 

চলমান দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ১৯৭ গাজীপুর-৪ আসন কাপাসিয়া থেকে নৌকা প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বর্তমান সংসদ সদস্য বঙ্গতাজ কন্যা সিমিন হোসেন রিমি। তার বিপরীতে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে ঈগল প্রতীকে প্রচারনায় মাঠে নেমেছেন কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা সদস্য শিল্পপতি আলম আহমেদ।

বুধবার ২৭ ডিসেম্বর বড় বোন সিমিন হোসেন রিমি এমপির নির্বাচানী প্রচারনায় যোগ দিয়ে নৌকা প্রতীকে ভোট চেয়েছেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও বঙ্গতাজ পুত্র তানজিম আহমদ সোহেল তাজ।

এসময় সোহেল তাজ বলেন, ‘আমরা ভোট দেব নৌকা প্রতীকে। যেই প্রতীক আমাদের মুক্তিযুদ্ধের মুক্তির সনদ। এই নৌকাই পারে এই দেশকে সমৃদ্ধিশালী করতে। তার প্রমাণ আমার পাশে বসে আছে আপনাদের তিনবারের নির্বাচিত এমপি সিমিন হোসেন রিমি। বুধবার ২৭ ডিসেম্বর বড় বোন সিমিন হোসেন রিমির সংসদীয় আসন গাজীপুর-৪ আসন কাপাসিয়ায় নৌকার প্রচারনায় এসে এসব কথা বলেন

সোহেল তাজ আরও বলেন, আজকে যদি আমরা কাপাসিয়ার দিকে তাকাই, এই যে রাস্তাঘাট, স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষাব্যবস্থার কতো উন্নয়ন হয়েছে। স্বাস্থ্য সেবায় কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এখন নাম্বার ওয়ান, দশে দশ। এটা কি সোনার বাংলার প্রমাণ নয়। এমন সোনার বাংলাই আমরা চেয়েছিলাম। আপনারা সবাই জানেন কি করতে হবে, আপনারা নিশ্চয়ই সবাই জানেন ভোটটা কোথায় দিতে হবে। কারণ আমরা চাই আমাদের বাংলাদেশটা কে আরো সুন্দর করতে হবে। দুর্নীতিমুক্ত করতে হবে, অনিয়ম অপব্যবস্থাপনা মুক্ত করতে হবে। আমরা চাই না যারা জালিয়াতি–দুর্নীতি করে টাকা কামাবে, তারা এসে বিভিন্ন জায়গায় সে টাকা ছড়িয়ে ভোট চাবে।আমরা চাই না যারা হাজার হাজার শত শত কোটি টাকা ঋণ খেলাপি করবে, ঋণ খেলাপি করে ওই টাকা উঠাবার জন্য এমপি ইলেকশন করবে। তাদের কে আমরা ভোট দিবো না। আমরা ভোট দিবো নৌকা প্রতীকে। আমি জানি কাপাসিয়ার মানুষ বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশের প্রথম প্রধান মন্ত্রী বঙ্গতাজ তাজউদ্দীন আহমেদ আদর্শকে ধারণ করে, লালন করে। তারা কোনো কালো টাকার কাছে তাদের আদর্শকে বিক্রি করবে না।

About mahabor

Check Also

কাপাসিয়ায় নৌকার জোয়ার

মিজানুর রহমান : গাজীপুর ৪ কাপাসিয়ায় আজ ৪/১২/২০২৩ বৃহস্প্রতিবার পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিকাল ৪ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *